• রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
কুষ্টিয়ার গ্রামে গ্রামে কুমড়ো বড়ি তৈরীর ধুম গাংনীতে জোরপূর্বক জ‌মি দখ‌লের অপ‌চেষ্টার বিরু‌দ্ধে সংবাদ সম্মেলন গাংনীতে নাশকতা মামলায় বিএনপি নেতা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার মেহেরপুর রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত কুষ্টিয়ায় বাড়ছে প্রতিবন্ধীর সংখ্যা একই পরিবারে ১৭ জন প্রতিবন্ধী মেহেরপুর জেলা পরিষদের রেস্ট হাউজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন গাংনীর সাহারবাটি গ্রামের সাবেক মেম্বার রুহুল কুদ্দুসের দাফন সম্পন্ন কুষ্টিয়ায় ট্রাকের ধাক্কায় ঝরলো দুটি প্রাণ প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন গাংনী প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কমিটির শপথ অনুষ্ঠিত

কুষ্টিয়ায় কৃষক হত্যার দায়ে ৫ ভাইয়ের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি / ৭২ Time View
Update : সোমবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২২
৫ ভাইয়ের যাবজ্জীবন
কুষ্টিয়ায় কৃষক হত্যার দায়ে ৫ ভাইয়ের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়ার কুমারখালীর বনগ্রামের কৃষক রেজাউলকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ১৬ বছর পর ৫ ভাইয়ের যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। একই সাথে তাদের ২৫ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে আরো ১ বছরের কারাদন্ড দেয়া হয়।

সোমবার (৩১ অক্টোবর) কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-১ এর বিচারক মোঃ তাজুল ইসলাম এই রায় ঘোষনা করেন। যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার মাঝগ্রামের মৃত রহমত আলী শেখের ছেলে উজ্জল শেখ(৫১), সেজ্জাত প্রকাশ সুজাত শেখ(৪১), সুজন শেখ(৩৯), আব্দুল গফুর শেখ(৬১) এবং জালাল উদ্দিন শেখ(৫৪) ।

অভিযোগ প্রমান না হওয়ায় এই মামলার ৭ আসামীকে বেকসুর খালাশ প্রদান করেন আদালত। রায় ঘোষনার সময় দন্ডপ্রাপ্ত ৫ আসামীর দধ্যে আব্দুল গফুর, ও জালাল উদ্দিনসহ মামলা থেকে খালাসপ্রাপ্ত ৭জন উপস্থিত ছিলেন। মামলার দন্ডপ্রাপ্ত বাকি ৩ আসামী পলাতক আছে। কুষ্টিয়া জজ আদালতের পিপি অ্যাডঃ অনুপ কুমার নন্দী রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরন এবং এজাহার সুত্রে জানাযায়, কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা মাঝগ্রামের কৃষক আফিল উদ্দিন এবং তার ছোট ভাই জামাল ‍উদ্দিন যৌথভাবে মাঠে সেচ দেওয়ার জন্য একটি যন্ত্রচালিত সেচযন্ত্র পরিচলনা করতো। জমিতে সেচ দেওয়াসহ জমিজমা নিয়ে তাদের সাথে এই মামলার আসামীদের পূর্ব বিরোধ ছিলো। সেই বিরোধের জেরে ২০০৭ সালের ১১ জুন রাত সাড়ে ১০টার দিকে সেচযন্ত্র চালু করার জন্য মাঠে যাওয়ার পথে আসামীরা জামাল উদ্দিন এবং তার ভাগনে রেজাউলকে কুপিয়ে আহত করে। পরে তাদের মধ্যে ঘটনাস্থলেই রেজাউল এর মৃত্যু হয়।

এই ঘটনার পরের দিন নিহতের ভাই আফিল উদ্দিন বাদী হয়ে কুমারখালী থানায় ১২ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় দীর্ঘ তদন্ত শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ০৭ জানুয়ারী মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন। পরে দীর্ঘ শুনানী শেষে ৫জন সাক্ষির সাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিত্বে আদালত এই রায় ঘোষনা করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category