• শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:১৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
গাংনীতে জমি রক্ষায় সংবাদ সম্মেলন গাংনীতে নাশকতা মামলায় বিএনপি নেতা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার মেহেরপুর রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত কুষ্টিয়ায় বাড়ছে প্রতিবন্ধীর সংখ্যা একই পরিবারে ১৭ জন প্রতিবন্ধী মেহেরপুর জেলা পরিষদের রেস্ট হাউজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন গাংনীর সাহারবাটি গ্রামের সাবেক মেম্বার রুহুল কুদ্দুসের দাফন সম্পন্ন কুষ্টিয়ায় ট্রাকের ধাক্কায় ঝরলো দুটি প্রাণ প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন গাংনী প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কমিটির শপথ অনুষ্ঠিত গাংনী উপজেলা নির্মান শ্রমিক ইউনিয়নের আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

গাংনীতে কম্পিউটার পাহারায় প্রধানমন্ত্রীর ছবি

বিবর্তন প্রতিবেদক / ৩২২ Time View
Update : সোমবার, ১০ অক্টোবর, ২০২২
গাংনীতে কম্পিউটার পাহারায় প্রধানমন্ত্রীর ছবি
গাংনীতে কম্পিউটার পাহারায় প্রধানমন্ত্রীর ছবি

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার বিএডিসি অফিসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি আছে। সোমবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে বিএডিসি কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় কম্পিউটারের পাশে অযত্নে-অবহেলায় রাখা দুটি ছবি। উপরের ছবিতে প্রধানমন্ত্রী এবং তার নিচেই স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের। এমন কাজ একটি সরকারী অফিসে রাষ্ট্রদ্রোহিদতার শামিল বলে মন্তব্য করেছেন অফিসে সেবা নিতে আসা সকলেই।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিধি অনুযায়ী দেশের সকল সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সম্মানের সাথে টাঙ্গানো বাধ্যতামূলক। কিন্তু এমন নির্দেশনা উপেক্ষা করে এ ছবি দুটো অবমাননাকর অবস্থায় ও অযত্নে-অবহেলায় ফেলে রাখার অভিযোগ উঠেছে গাংনী উপজেলার বিএডিসি কর্মকর্তা শ্যামল হোসেনের বিরুদ্ধে।

সরেজমিনে দেখাগেছে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি অফিস কক্ষে নেই। চারদিকের কোন দেওয়ালে দেখতে না পেলেও ছবির দেখা মেলে কম্পিউটার ক্যাচিংয়ের উপরে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ধুলোবালি পড়ে ময়লা জমে গেছে। সরকারী নির্দেশনা না মানায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন সে সময় অফিসে উপস্থিত সকলেই।

এ বিষয়ে বিএডিসি কর্মকর্তা শ্যামল হোসেন বির্বতন বাংলাকে জানান, ১ মাস আগে অফিস সংস্কার করেছি। এখনও অনেক কাজ বাকি আছে। তাই প্রধানমন্ত্রীর ছবিটা কম্পিউটারে ডেস্কটপের উপর রেখে দিয়েছি। ছবি লাগানো হয়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী খানম বির্বতন বাংলাকে জানান, প্রধানমন্ত্রী ও জাতির পিতার ছবি অরক্ষিত রাখার সুযোগ নেই। আমি খোজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category