• মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:৩২ অপরাহ্ন

জেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে শাহানা ইসলামের মনোনয়নপত্র দাখিল

বিবর্তন প্রতিবেদক
Update : বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২
মনোনয়নপত্র দাখিল
জেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে মনোনয়নপত্র দাখিল

মেহেরপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য (গাংনী উপজেলা) পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন শাহানা ইসলাম শান্তনা। বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) তিনি মেহেরপুর জেলা নির্বাচন অফিসার আবু আনছারের কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

শাহানা ইসলাম শান্তনা গাংনী পৌরসভার সাবেক মেয়র আশরাফুল ইসলামের সহধর্মিনী। জেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচনে ২০১৬ সালে তৎকালীন ৪নং ওয়ার্ডে একই পদে জয়লাভ করেছিলেন শাহানা ইসলাম শান্তনা। তিনি বাংলাদেশ যুব মহিলালীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য। এছাড়াও গাংনী আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে তিনি নারীনেত্রী হিসেবে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

রাজনৈতিক অঙ্গনে শাহানা ইসলাম শান্তনার একটি অবস্থান রয়েছে। গেল নির্বাচনে সদস্য থাকায় জেলা পরিষদ পরিচালনায় তার অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা রয়েছে। ফলে ভোটারদের সাথেও রয়েছে তার নিবিড় যোগাযোগ। বিগত দিনের উন্নয়ন কর্মকা-ের ধারাবাহিকতায় এবারের নির্বাচনে জয়ের বিষয়ে আশাবাদী তার সমর্থকরা। নির্বাচনে জয়লাভের জন্য ভোটার, সমর্থকসহ সকলের কাছে সহযোগিতা প্রত্যাশী শাহানা ইসলাম শান্তনা।

জানা গেছে, ১৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার জেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। যাচাই বাছাই ১৮ সেপ্টেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৬ সেপ্টেম্বর এবং ২৭ সেপ্টেম্বর প্রতীক বরাদ্দ। আগামি ১৭ অক্টোবর ভোট গ্রহণ।

জেলা পরিষদ নির্বাচনের সংশোধিত আইন অনুযায়ী মেহেরপুর জেলায় একজন চেয়ারম্যান, তিন উপজেলায় এক জন করে তিন জন সাধারণ সদস্য এবং মেহেরপুর সদর ও মুজিবনগর উপজেলা মিলে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদ একটি এবং শুধুমাত্র গাংনী উপজেলায় সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদ একটি রয়েছে।

গাংনী উপজেলায় মোট ভোটারের সংখ্যা ১৩৩ জন। এর মধ্যে ৯টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় ১৩০ জন এবং উপজেলা পরিষদে ৩ জন ভোটার রয়েছেন।

২০১৬ সালের ২৮ ডিসেম্বর দেশে প্রথমবারের মতো জেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছিলেন অ্যাড. মিয়াজান আলী। স্বতন্ত্র প্রার্থী সদর উপজেলা আ.লীগের সাবেক সভাপতি গোলাম রসুল চেয়ারম্যান পদে জয়লাভ করেছিলেন। এবার দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন অ্যাড. আব্দুস সালাম।

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category